বৃহস্পতিবার , জুন ১৭ ২০২১
Home / জাতীয় / বাড়ি বাড়ি খাদ্যসামগ্রী পৌঁছে দিচ্ছে উপজেলা প্রশাসন

বাড়ি বাড়ি খাদ্যসামগ্রী পৌঁছে দিচ্ছে উপজেলা প্রশাসন

সংবাদ চ‍্যানেল মাদারীপুর প্রতিনিধি


  1. লকডাউন (অবরুদ্ধ) করা মাদারীপুরের শিবচর উপজেলায় হোম কোয়ারেন্টাইনে থাকা ব্যক্তিদের এবং বন্ধ বাজারের ক্ষুদ্র ব্যবসায়ীদের বাড়ি বাড়ি খাদ্যসামগ্রী পৌঁছে দিচ্ছে উপজেলা প্রশাসন।
    সোমবার (২৩ মার্চ) দুপুরে উপজেলার ঝুঁকিপূর্ণ এলাকাগুলোতে উপজেলা চেয়ারম্যান শামসুদ্দিন খান ও উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) মো. আসাদুজ্জামানের নেতৃত্বে বাড়ি বাড়ি এসব খাবার বিতরণ করা হয়েছে। হোম কোয়ারেন্টাইনে থাকা মানুষের পাশাপাশি নিম্নআয়ের মানুষ ও দোকানিদের বাড়িতে জরুরি খাদ্যসামগ্রী ও ওষুধ পৌঁছে দেয়া হয়।
    উপজেলা প্রশাসন জানায়, চারদিন ধরে শিবচরের চারটি এলাকায় প্রায় ৭০ হাজার মানুষ অবরুদ্ধ। শিবচর পৌর বাজারসহ ঝুঁকিপূর্ণ দুটি ওয়ার্ড ও দুটি ইউনিয়নের দুই গ্রামে ২৫০ পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে। এসব এলাকার ১৬টি পয়েন্টে পুলিশ পাহারায় রেখে প্রবেশাধিকার সংরক্ষিত করা হয়েছে।
    অবরুদ্ধ এলাকাগুলো হলো- শিবচর পৌরসভার দুটি ওয়ার্ড, পাঁচ্চর ইউনিয়নের দুটি গ্রাম ও দক্ষিণ বহেরাতলা ইউনিয়নের দুটি গ্রাম। এসব গ্রামে হোম কোয়ারেন্টাইনে থাকা পরিবার ও নিম্নআয়ের মানুষের বাড়িতে চাল, ডাল, তেল, পেঁয়াজ, লবণ, সাবান ও ওষুধসহ নিত্যপ্রয়োজনীয় খাবার পৌঁছে দেয়া হয়।
    স্থানীয় সূত্র জানায়, অবরুদ্ধদের জন্য প্রথম পর্যায়ে ১৫ মেট্রিক টন চাল বরাদ্দ করা হয়েছে। মাদারীপুর জেলা পুলিশের পক্ষ থেকে হোম কোয়ারেন্টাইনে থাকা বাড়ির দেয়ালে স্টিকার ও লাল পতাকা টাঙিয়ে দেয়া হয়েছে। প্রশাসনের কঠোর নজরদারি রয়েছে। দোকান খোলা রাখলেই জরিমানা করা হয়।
    করোনাভাইরাসের সংক্রমণ রোধে মাদারীপুরের শিবচর উপজেলা লকডাউন করা হয়। উপজেলার ছয়টি এলাকাকে পুরোপুরি নিয়ন্ত্রণ করছে স্থানীয় প্রশাসন ও পুলিশ।
    প্রাথমিকভাবে ৭০ হাজার মানুষকে চিহ্নিত করে নজরদারিতে রাখা হয়েছে। ফলে পুরো শিবচর উপজেলা কার্যত লকডাউন (অবরুদ্ধ) হয়ে আছে। এতে রাস্তাঘাটে নেই লোকজনের সমাগম, ব্যবসা প্রতিষ্ঠানও বন্ধ রয়েছে। অতিপ্রয়োজনীয় দোকানপাট খোলা থাকলেও ক্রেতারা আসছেন না।
    উপজেলা পরিষদ থেকে জানানো হয়, উপজেলার ঘোষণাকৃত চারটি অবরুদ্ধ এলাকায় কোয়ারেন্টাইনে থাকা ব্যক্তি এবং গরিব অসহায় ক্ষুদ্র ব্যবসায়ী এমন পাঁচশ পরিবারকে ২০ কেজি চাল, দুই কেজি ডাল, এক লিটার তেল, এক কেজি লবণ, দুই কেজি আলু ও একটি করে সাবানের পেকেট দেয়া হয়।
    এ সময় উপস্থিত ছিলেন শিবচর পৌরসভার মেয়র আওলাদ হোসেন খান, উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা. শশাঙ্ক, শিবচর উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ডা. মো. সেলিম, উপজেলা যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক খায়রুজ্জামান খানসহ উপজেলার বিভিন্ন দফতরের কর্মকর্তারা
    শিবচর উপজেলা চেয়ারম্যান শামসুদ্দিন খান বলেন, আমরা আপাতত পাঁচশ পরিবারের মধ্যে খাদ্যসামগ্রী দিয়েছি।পর্যায়ক্রমে পরিবারের সংখ্যা ও খাবারের পরিমাণ বাড়ানো হবে।
    শিবচর পৌরসভার মেয়র আওলাদ হোসেন খান বলেন, অবরুদ্ধদের মাঝে খাবার বিতরণ করা হয়েছে। যেহেতু তারা ঘর থেকে বের হচ্ছেন না তাই তাদের জন্য এ ব্যবস্থা নেয়া জরুরি ছিল।

উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) মো. আসাদুজ্জামান বলেন, অবরুদ্ধ সব এলাকার ঘরে ঘরে খাদ্যসামগ্রী পৌঁছে দিচ্ছি। বিদেশফেরত প্রবাসীরা হোম কোয়ারেন্টাইনে রয়েছেন। নিরাপদ দূরত্বে থেকে আমরা তাদের খাবার পৌঁছে দিচ্ছি।

গত বৃহস্পতিবার (১৯ মার্চ) মাদারীপুর জেলা প্রশাসন, স্বাস্থ্য বিভাগ ও পুলিশ বিভাগের সমন্বয়ে শিবচর পৌরসভার দুটি ওয়ার্ড, পাঁচ্চর ইউনিয়নের দুটি গ্রাম ও দক্ষিণ বহেরাতলা ইউনিয়নের দুটি গ্রামে চলাচল সীমিত করা হয়। পরে শিবচর লকডাউন করা হয়। এসব এলাকায় ১৬টি পয়েন্টে টহল দিচ্ছে পুলিশ। কালকিনি উপজেলা থেকে বরিশালগামী কোনো পরিবহন চলাচল করতে দেয়া হয় না। এতে দক্ষিণাঞ্চলের অন্য জেলার সঙ্গে যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন রয়েছে।

About songbadchannel

Check Also

মানবিক দৃষ্টিকোণ থেকে দেখুন

  বিস্তারিত জানতে 01714802695

Leave a Reply

Your email address will not be published.